- বুধবার ১৯ জুন ২০২৪

| আষাঢ় ৫ ১৪৩১ -

Tokyo Bangla News || টোকিও বাংলা নিউজ

টোকিওতে ৭ জনকে হত্যার দায়ে দন্ডপ্রাপ্তের ফাঁসি কার্যকর

ষ্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০২:৫৭, ২৭ জুলাই ২০২২

টোকিওতে ৭ জনকে হত্যার দায়ে দন্ডপ্রাপ্তের ফাঁসি কার্যকর

ছবি:এনএইচকে

২০০৮ সালে টোকিও'র আকিয়াবাড়াতে ছুরিকাঘাতে সাত জনকে হত্যার দায়ে এক ব্যক্তির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। মঙ্গলবার আইনমন্ত্রী ইয়োশিহিসা ফুকুকাওয়া সাংবাদিকদের একথা জানান।

দেশটির আইন মন্ত্রী ইয়োশিহিসা ফুরুকাওয়া বলেছেন, পরিকল্পনা করে তোমোহিরো কাতো এ হত্যাকাণ্ড ঘটান। 

তিনি বলেন, ‘আদালতে পর্যাপ্ত আলোচনার মাধ্যমে এ মামলায় মৃত্যুদণ্ড চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ ঘটনার সত্যতার ওপর ভিত্তি করে, আমি অত্যন্ত পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে যাচাই-বাছাই করার পর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার অনুমোদন দিয়েছি।’

এর আগে ২০০৮ সালের জুন মাসে টোকিওর ব্যস্ত এলাকা আকিয়াবাড়াতে ভিড়ের মাঝে একটি ট্রাক তুলে দিলে সে ঘটনায় আরও ১০ জন আহত হন। এরপর ছুরিকাঘাত করেন আরও বেশ কয়েকজনকে। ঘটনাস্থলেই গ্রেপ্তার হন ২৫ বছর বয়সি ওই খুনি।

হামলা চালানোর আগে ওই হামলাকারী অনলাইনে একটি বার্তা পোস্ট করে লেখেন, ‘আমি আখিবারায় মানুষ মারবো। আমার একটাও বন্ধু নেই, আমাকে অবজ্ঞা করা হয় কারণ আমি কুৎসিত। আমি আবর্জনা থেকেও খারাপ।’

জাপানের শীর্ষ আদালত ২০১৫ সালে কাতোর মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করে বলেন যে, ‘উদারতার কোন ভিত্তি নেই’। হামলাটি ছিল সাত বছরের মধ্যে দেশের সবচেয়ে ভয়াবহ গণহত্যা।

জানা গেছে, কাতো একজন ব্যাংক কর্মকর্তার সন্তান। জাপানের উত্তরের একটি শহরে তাঁর বেড়ে ওঠা। একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়াশোনা শেষ করলেও তাঁর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষায় ব্যর্থ হয় সে এবং অবশেষে একজন গাড়ি মেকানিক হিসেবে প্রশিক্ষণ নেয়।

এই বছর জাপানে কাতোর ফাঁসি কার্যকর প্রথম ঘটনা এবং এর আগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে তিন জন বন্দিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

আর এ