- শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

| বৈশাখ ৬ ১৪৩১ -

Tokyo Bangla News || টোকিও বাংলা নিউজ

শান্তির দেশে বিজয় কেতন : জার্মানিকে হারিয়ে জাপানের বিশ্বকাপ শুরু 

ষ্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০২:০৪, ২৪ নভেম্বর ২০২২

শান্তির দেশে বিজয় কেতন : জার্মানিকে হারিয়ে জাপানের বিশ্বকাপ শুরু 

ছবি: জাপান টাইমস্

জাপানের স্থানীয় সময় বুধবার দুপুরে কথা হচ্ছিল মি. হিরোতোর সঙ্গে। যিনি ফুটবল খুবই পছন্দ করেন। আজ স্থানীয় সময় রাত ১০ টার আগেই সব কাজ গুছিয়ে বাসায় যাবেন খেলা দেখতে। এমনি পরিকল্পনা করে রেখেছেন দিন কয়েক আগে থেকেই। 

বিশ্বকাপ নিয়ে একথা-সেকথা। তার মধ্যেই জার্মানকে নিয়ে কথা উঠতেই আজকের ম্যাচে জার্মান-ই ফ্যাবারিট। একথা মানতে একটুও সময় নেননি মি. হিরোতো। তবুও আশা, যদি অন্যরকম কিছু ঘটে !

জাপানিজদের মধ্যে বিশ্বকাপ নিয়ে অতো হইচৈই নেই। সবাই যেন প্রতিদিনের কাজ নিয়েই ব্যস্ত। তবুও খেলার খবরতো রাখাই হয়। তাও আবার নিজ দেশের খেলা। সেই বিধায় সুযোগ পেলেই পোষ্টমর্টেমও চলে বিশ্বকাপের নানা বিষয়াদি নিয়ে। তাই তারই অংশে বেশিরভাগ জাপানিজদের মুখে উঠে আসে-জার্মান ফেবারিট। তবু যদি অঘটনের জন্ম দেয় জাপান, ক্ষতি কি? তার উপর সৌদি আরবের কাছে শিরোপা দাবিদার আর্জেন্টাইনদের হার যেন জাপানিজদের আশার ব্যারোমিটার বাড়িয়ে দিতে উৎসাহের যোগানদাতা হয়ে ধরা দেয়। 

তাইতো মধ্যরাতের জাপানের আনন্দের ত্রানদাতা হিসেবে রিতসু দুয়ান এবং তাকুমা আসানো সাড়ে ১২ কোটি মানুষের মুখে হাসির বার্তা তুলে দেন মাত্র ৮ মিনিটের ব্যবধানে। 

আক্রমন-পাল্টা আক্রমনের মধ্যদিয়েই প্রথমমার্ধেই এগিয়ে যায় জার্মান। ৩১ মিনিটে ডি-বক্সের ভেতরে আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে জার্মান ডিফেন্ডার ডেভিড রোউমকে ফাউল করে বসেন জাপানি গোলরক্ষক শুইচি গোন্দা। রেফারি সঙ্গেও সঙ্গেই পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন, পরে ভিএআর দেখেও অটল থাকেন সেই সিদ্ধান্তে। গুন্দোয়ানের স্পট কিকে এগিয়ে যায় জার্মানি। 

তারপর থেকে দুই দলই সমানতালে প্রতিপক্ষের জালে বল প্রবেশের চেষ্টা চালালেও ফলাফলে কোন পরিবর্তন আনতে পারছিল না। কিন্তু পরিশ্রমী জাতি হিসেবে খ্যাত জাপান যে শেষ মিনিট পর্যন্ত আশা ছাড়ে না তারই উদাহরন তৈরী করে দেখালো ২০২২ এর কাতারের এ বিশ্বকাপে। 

কোটি কোটি জাপানিজদের প্রার্থনার ফোয়ারাতে তাইতো সমতা ফেরানোর দায়িত্ব তুলে নিলেন রিতসু দুয়ান। বদলিতে নামা খেলোয়াড় হিসেবে নেমে ৭৫তম মিনিটে দুয়ানের গোলে সমতায় ফেরে এশিয়ান জায়ান্টরা। আর ৮৩তম মিনিটে জাপানকে বিজয়ের স্বাদ এনে দেন আরেক বদলি খেলোয়াড় তাকুমা আসানো।

তবে জাপানের ঐতিহাসিক জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন গোলরক্ষক শুইচি গোন্ডাও। ম্যাচে মোট ৮টি সেভ করেছেন তিনি। বিশ্বকাপে জাপানিজ কোনো গোলরক্ষকের পক্ষে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সেভ। বলা বাহুল্য, ৮ সেভের ৪টিই ছিল ডিবক্সের ভেতর থেকে।

এর আগে, পঞ্চম মিনিটে ডিবক্স থেকে জার্মানির জালে বল পাঠান জাপানের দাইজেন মায়েদা। কিন্তু শট নেওয়ার সময় অফসাইড পজিশনে থাকায় তার গোলটি বাতিল হয়ে যায়। যে পজিশনে ছিলেন মায়েদা, তাতে ডিবক্সে একটু পরে ঢুকলেও সতীর্থের পাসটা পেতেন তিনি। 
৩৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করেন ম্যানচেস্টার সিটি তারকা গন্ডোয়ান। যোগ করা সময়ে (৪০+৫ মিনিট) অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায় কাই হাভার্টজের গোল।
উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে শিরোপা জয়ী কোনো দলের বিপক্ষে এটি জাপানের প্রথম জয়। এর আগে ২০০২ সালে রাশিয়া ও তিউনিশিয়া, ২০১০ সালে ক্যামেরুন ও ডেনমার্ক এবং গত আসরে কলম্বিয়ার বিপক্ষে জিতেছিল দলটি।

আর এ